1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. mshc@hotmail.co.uk : ইউকে বিডি২৪ : ইউকে বিডি২৪
  3. : :
  4. zufgvwrswv@bqocm.com : i30snk19ry cja1ten1jc : i30snk19ry cja1ten1jc
রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০২:০৫ পূর্বাহ্ন
নোটিশঃ
#ঘরে_থাকুন, নিরাপদ থাকুন! নিয়মিত হাত পরিষ্কার করুন, অন্যের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন, সচেতন থাকুন।

বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের ভিসা দেওয়া শুরু করছে চীন

  • আপডেট করা হয়েছে রবিবার, ৭ আগস্ট, ২০২২
  • ১১২ বার পড়া হয়েছে

 

করোনাভাইরাস মহামারীর কারণে দুই বছরের বেশি সময় বন্ধ থাকার পর বাংলাদেশি শিক্ষার্থীদের আবার ভিসা দেওয়া শুরু করছে চীন।

রোববার সকালে হোটেল সোনারগাঁওয়ে চীনা পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেনের নেতৃত্বে দুই দেশের দ্বিপক্ষীয় বৈঠক হয়। এ সময় চীনের পক্ষ থেকে এ কথা জানানো হয়।

চীনের পররাষ্ট্রমন্ত্রী ওয়াং ই এবং বাংলাদেশের পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ কে আব্দুল মোমেন হোটেল সোনারগাঁওয়ে এই দ্বিপক্ষীয় বৈঠকে দুই দেশের প্রতিনিধি দলের নেতৃত্ব দেন।

পরে সংবাদ সম্মেলনে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম বলেন, কোভিডের কারণে দীর্ঘদিন ধরে চীনে যাওয়ার সুযোগ বন্ধ ছিল। মহামারী শুরুর আগে বাংলাদেশের কয়েক হাজার শিক্ষার্থী সেখানে লেখাপড়া করতেন, যারা দেশে ফিরে আটকা পড়ে যান। এ বিষয়ে বাংলাদেশের তরফ থেকে নিয়মিত চীনের সাথে যোগাযোগ রাখা হচ্ছিল।

রোববারের বৈঠকে চীনের তরফ থেকে শিক্ষার্থীদের জন্য আবার ভিসা চালুর বিষয়টি জানানো হয়।

শাহরিয়ার আলম বলেন, “দুয়েক দিনের মধ্যে চীনে ফেরত যাওয়ার জন্য শিক্ষার্থীদের ভিসা প্রদান করা শুরু হবে। এবং এক্ষেত্রে লজিস্টিকস এবং অন্যান্য বিষয়ে আমাদের সাথে আলোচনা হবে।

“তারা বলেছেন, আগামীকাল থেকে তারা ভিসা ইস্যু করা শুরু করবেন। একজনের জন্য ইতোমধ্যে ভিসা ও ট্র্যাভেল পারমিট দেওয়া হয়েছে।”

করোনাভাইরাস মহামারীতে চীন থেকে দেশে এসে প্রায় পাঁচ হাজার বাংলাদেশি শিক্ষার্থী আটকা পড়েছিলেন। সংক্রমণ কমে আসায় অন্য সব দেশ ধীরে ধীরে সীমান্ত খুলে দিলেও চীন এতদিন শিক্ষার্থীদের ভিসা দেয়নি। বাংলাদেশের শিক্ষার্থীরাই প্রথম আবার চীনে ফেরার সুযোগ পাচ্ছেন।

সিলেট/আবির

About Author

শেয়ার করুন

Facebook Comments

আরো সংবাদ পড়ুন