1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. mshc@hotmail.co.uk : ইউকে বিডি২৪ : ইউকে বিডি২৪
  3. : :
  4. zufgvwrswv@bqocm.com : i30snk19ry cja1ten1jc : i30snk19ry cja1ten1jc
রবিবার, ১৬ জুন ২০২৪, ১১:৫২ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
#ঘরে_থাকুন, নিরাপদ থাকুন! নিয়মিত হাত পরিষ্কার করুন, অন্যের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন, সচেতন থাকুন।

ভাটির জনপদে জগদল হাসপাতালের কার্যক্রম শুরু শনিবার

  • আপডেট করা হয়েছে শনিবার, ২০ ফেব্রুয়ারি, ২০২১
  • ৫২১ বার পড়া হয়েছে

স্টাফ রিপোর্ট::

দিরাই উপজেলার জগদল ইউনিয়নে বহু প্রতীক্ষিত সরকারের প্রায় সাড়ে সাত কোটি টাকা ব্যয়ে ২০ শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালটি প্রায় ৭ থেকে ৮ বছর আগে উদ্ভাবন করা হলেও এখন পর্যন্ত স্বাস্থ্য ও চিকিৎসা সেবা থেকে বঞ্চিত ভাটির জনপদের মানুষগুলো । উক্ত কাজের জন্য ডক্টর সামছুল হক চৌধুরীকে যুক্তরাজ্য জাতীয় শ্রমিকলীগের ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা।

তারই পরিপ্রেক্ষিতে উক্ত সমস্যা সমাধানে কঠোর পরিশ্রম ও সৃজনশীলতাকে কাজে লাগিয়ে ভাটির সেবক হিসেবে এগিয়ে আসেন ডা: সামছুল হক চৌধুরী। তিনি জনপ্রতিনিধি না হয়েও এলাকা ও জনগনের আর্থ সামাজিক উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন দীর্ঘদিন ধরে সুনামগঞ্জ-২ আসনের দিরাই-শাল্লার কৃতিত্ব সন্তান ডক্টর মো: সামছুল হক চৌধুরী, বাংলাদেশ আওয়ামীলীগ বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য এবং যুক্তরাজ্য জাতীয় শ্রমিকলীগের কার্যকরী সভাপতি, মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী মহোদয়ের শরণাপন্ন হয়ে ২৪ শে নভেম্বর ২০১৯ ইং তারিখে জরুরী ভিওিতে হাসপাতালের কার্যক্রম চালু ও জনবল নিয়োগের জন্য ডিও লেটার মাননীয় স্বাস্হ্য মন্ত্রী মহোদয়ের নিকট নিজ হাতে দিয়ে নথিভুক্ত করে রিসিভ কপি নিয়ে আসেন।

তার পর বার বার মন্ত্রনালয়, স্বাস্হ্য বিভাগ এবং জনপ্রশাসন মন্ত্রনালয়ে কাজের অগ্রগতি কি হচ্ছে তার জন্য যোগাযোগ করার পর জানতে পারেন কাজটি দ্রুত গতিতে এগুচ্ছে।
এদিকে অধ্যাবধি সচিবালয় গিয়েও কাজের অগ্রগতি নিয়ে খোঁজ খবর রাখেন তিনি । নানা প্রতিকূল ডিঙিয়ে বর্তমানে কাজটি অনুমোদন লাভ করেছে। হাজারো ভাটি বাংলার মানুষের স্বপ্ন আজ বাস্তবে রুপ নিচ্ছে।

ডা: সামছুল হক চৌধুরী জনপ্রতিনিধি না হলেও মানব সেবায় সর্বদা নিয়োজিত। তার ফলশ্রুতিতে উল্লেখ্য যে তিনি গত ২৪শে নভেম্বর ২০১৯ সালে পরিকল্পপনা মন্ত্রনালয় থেকে একই সাথে চারটা ডিও লেটারের মাধ্যমে জনগণের স্বার্থে দিরাই উপজেলায় কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মান প্রকল্প, শাল্লায় কারিগরি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান নির্মান প্রকল্প, দিরাই শেখ রাসেল স্টেডিয়াম নির্মাণ ও দিরাই উপজেলার জগদল ইউনিয়নে ২০ আসন বিশিষ্ট হাসপাতালে ডাক্তার, নার্স অন্যান্য লোকবল নিয়োগের জন্য মন্ত্রনালয়ে জমা দেন।

এসময় তিনি বলেন, আমি মনে প্রাণে বিশ্বাস করি মানব সেবা করতে হলে জনপ্রতিনিধি হওয়া লাগে না। মানব সেবা কে আমি ইবাদত মনে করি। আমি নিজ উদ্যেগে অনেক কাজ করেছি, স্কুল, মসজিদ মাদ্রাসাসহ অনেক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান। কিন্তু এগুলো ছোট ছোট হলে ও বড় আকারে করতে হলে বড় অনুদান প্রয়োজন তাই সময়ের প্রয়োজনে আমি কারিগরি শিক্ষা অনগ্রসর দিরাই ও শাল্লা উপজেলা একটি করে কারিগরি কলেজ স্থাপনের জন্য গত ১৮ নভেম্বর শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি এমপি বরাবর পৃথক দুটি আবেদন করি। এ দুটি আবেদনে মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সুপারিশ করেন। একই দিন দিরাই উপজেলার জগদল গ্রামে নির্মাণাধীন ২০ শয্যা উপ-স্বাস্থ্য কেন্দ্রে চিকিৎসক ও জনবল দেওয়ার জন্যা স্বাস্থ্য মন্ত্রী জাহেদ মালেক এমপি বরাবর আবেদন করি। এ আবেদনটিও মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান সুপারিশ করেন।

এছাড়াও দিরাই উপজেলায় একটি শেখ রাসেল স্টেডিয়াম করার জন্য যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মো. জাহিদ আহসান রাসেল বরাবর আরো একটি আবেদন করি। এ আবেদনটিতেও মাননীয় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান সুপারিশ করেন।

এর প্রেক্ষিতে ২৪ নভেম্বর মাননীয় পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নান, শিক্ষামন্ত্রী, স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী বরাবর ডিও লেটার দিয়েছেন। এসময় তিনি দিরাই ও শাল্লাবাসীর পক্ষ থেকে পরিকল্পনামন্ত্রী এম এ মান্নানকে অভিনন্দন ও কৃতজ্ঞতা জানান।

সামছুল চৌধুরী জানান আরো জানান, সুনামগঞ্জ-২, আসনে গত দুই টার্মে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ থেকে জাতীয় সংসদ পদের জন্য মনোনয়ন প্রত্যাশী ছিলেন তিনি। কিন্তু তিনি শেখ হাসিনার নির্দেশকে মেনে নিয়ে নির্বাচন থেকে সরে দাড়ান।

তিনি পারিবারিকভাবেই স্বাধীন বাংলাদেশের স্বপ্নদ্রষ্টা জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের আদর্শের সৈনিক। তাই ছাত্রজীবনে ছাত্রলীগের রাজনীতির মাধ্যমে এই আদর্শের পথে আমার যাত্রা শুরু হয় অতীতে স্বৈরাচার বিরোধী আন্দোলন এবং ১-১১ শুরু করে সকল গণতান্ত্রিক আন্দোলনে ছাত্রলীগের লড়াকু সৈনিক হিসেবে অধ্যাবধী দেশেও প্রবাসে বঙ্গবন্ধুর সোনার বাংলা প্রতিষ্টায় কাজ করেছেন।

ছাত্রজীবনের পর থেকে পারিবারিক প্রয়োজনে দেশের বাহিরে অবস্থান করলেও সেখানে থেকেও তার রাজনৈতিক তৎপরতা থেমে থাকেনি। এলাকার মানুষের উন্নয়নে বিভিন্ন সড়ক নিমার্ণসহ স্কুল, মসজিদ, মাদ্রাসা, মন্দিরের উন্নয়নে কাজ করেছেন। তিনি ব্যক্তিগতভাবে সাধারণ মানুষের আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে কর্মকান্ডে ছাত্রজীবন থেকে দীর্ঘ প্রায় ৩৪ বৎসর যাবৎ আওয়ামী রাজনীতি ও বিভিন্ন আর্থ-সামাজিক সংগঠনের সাথে অতপ্রোতভাবে জড়িত থেকে এলাকার উন্নয়নে কাজ করে যাচ্ছেন।

আগামীতে দিরাই-শাল্লাবাসীকে সাথে নিয়ে বর্তমান সরকারের গ্রামকে আধুনিক নগর সুবিধা প্রদানে দুই উপজেলার প্রতিটি গ্রামকে শহরে রুপান্তরিত করার লক্ষ্যে কাজ করে যাবেন। এছাড়াও তিনি কৃষি নির্ভর এই দুই উপজেলার কৃষকদের আধুনিক কৃষকে তৈরী এবং প্রযুক্তির ব্যবহার ও কৃষককে প্রযুক্তিবান্ধব করার পরিকল্পনাকে এই বিনিয়োগের আওতায় আনার জন্য মহাপরিকল্পনাও রয়েছে ।

প্রস্তাবিত কাজের কাগজপত্র ।

About Author

শেয়ার করুন

Facebook Comments

আরো সংবাদ পড়ুন