1. shahalom.socio@gmail.com : admin :
  2. mshc@hotmail.co.uk : ইউকে বিডি২৪ : ইউকে বিডি২৪
  3. : :
  4. zufgvwrswv@bqocm.com : i30snk19ry cja1ten1jc : i30snk19ry cja1ten1jc
বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ০৯:৫৭ অপরাহ্ন
নোটিশঃ
#ঘরে_থাকুন, নিরাপদ থাকুন! নিয়মিত হাত পরিষ্কার করুন, অন্যের সংস্পর্শ এড়িয়ে চলুন, সচেতন থাকুন।

ঈদের ছুটিতে ৫০ ডলারে দার্জিলিং ভ্রমণ!

  • আপডেট করা হয়েছে বুধবার, ২৩ আগস্ট, ২০১৭
  • ৩৫৪ বার পড়া হয়েছে

তাহলে আর কথা না বাড়িয়ে বেড়িয়ে আসি, কী বলেন? ঢাকা থেকে যাত্রা শুরু রাত ১০টায়। ৬৫০ টাকায় নাবিল পরিবহনে করে আপনি পঞ্চগড় চলে যান। পঞ্চগড় থেকে দেড় ঘণ্টার ৭০ টাকার বিনিময়ে বাংলাবান্ধা। মাঝে তেঁতুলিয়াতে ১০ টাকার লুচি আর চা, ব্যাস হয়ে গেল সকালের নাস্তা।

ফুলবাড়ি গিয়ে মাত্র ৫/৭ মিনিটে সব ফর্মালিটি শেষ করেন। ১০ মিনিট হেঁটে শিলিগুড়ির মূল শহরের রাস্তায়। এরপর ২২ টাকা দিয়ে শিলিগুড়ি যাবেন পানির ট্যাংকি জিপ স্ট্যান্ডে। পৌঁছে যাবেন ১৫/২০ মিনিটেই সেই গন্তব্যে। যেখান থেকে সরাসরি কালিম্পং ও লাভার শেয়ার জিপ পাওয়া যায়। কালিম্পং জিপ আর লাভার জিপ আছে তবে সেটা দুপুর ২টার পরে। লাভা যেতে সময় লাগবে প্রায় সাড়ে তিন ঘণ্টা। আর সেই জিপও কালিম্পং হয়েই যাবে। তাই আর দেরি না করে কালিম্পং যাওয়ার জিপের টিকেট নিতে পারেন আপনি। সাথে নিতে পারেন পথে খাবারের জন্য ২০০ টাকার শুকনো খাবার। পথে যদি ভালো জায়গা না থাকে তবে যেন লাঞ্চটাও সেরে ফেলা যায়, এমন কিছু খাবারসহ।

ঠিক আড়াই ঘণ্টায় পৌঁছে যাবেন কালিম্পং। এখানে শুধুই টাকার হিসেবের খতিয়ান। কালিম্পং গিয়ে জিপ থেকে নামার আগেই দেখতে পাবেন লাভার দিকে ছেড়ে যাচ্ছে জিপ। উঠে পড়ুন লাভা অভিমুখের জিপে। আঁকাবাঁকা পাহাড়ি আর ঢেউ খেলানো পথে দুলতে-দুলতে, বৃষ্টিতে ভিজতে-ভিজতে আর শিহরিত হয়ে আপনি লাভায় পৌঁছে যাবেন দেড় ঘণ্টায়। ভাড়া টাকায় ৭৮ টাকা মাত্র।

খুঁজে-খুঁজে একটি লজে থাকার ব্যবস্থা করতে পারেন, ভাড়া অফ সিজন বলে মাত্র ৪০০ টাকা রুমপ্রতি হতে পারে। যদিও ৫০০ টাকা , কিন্তু দরদাম করে এটাতেই রফা করতে পারেন। হিম শীতল পানিতে একটু ফ্রেস হয়ে গরম কাপড় পরে বাইরে বের হতে পারেন, বৃষ্টি আর পাহাড় দেখতে। বৃষ্টির মাঝেই ঘুরে দেখতে পারেন খুঁটিনাটি।

ভিউ পয়েন্ট, রাচেলা পিক, কাঞ্চন পিক, এমন আরো অনেক অনেক মজার তথ্যে আপনাকে অভিভূত করে রাখবে সন্ধ্যা নামার পূর্ব পর্যন্ত। এরপর বৃষ্টির ছাট আর প্রায় সন্ধ্যার আঁধারে লাভার পিকে বসে উপভোগ করতে পারেন গরম কফি। সন্ধ্যা নামতেই সব সুনসান নীরবতা। এমনিতেই মানুষ নেই, তখন তো আরো থাকে না। তাই রুমে গিয়ে দুই কম্বলের নিচে ঢুঁকে পড়তে পারেন। হ্যাঁ এমনই ঠাণ্ডা যে মোটা মোটা দুই কম্বলেই স্বস্তি খুঁজে নিতে হতে পারে আপনাকে।

সকালে ঘুম থেকে উঠে রিশপের পথে হাঁটতে পারেন। শুরু করতে পারেন নেওরাভ্যালি ন্যাশনাল ফরেস্টের ভেতর দিয়ে। রিশপ পৌঁছে মুগ্ধতা আর মুগ্ধতা। বুঝতে পারবেন না কোন দিকে তাকাবেন আপনি, পূর্বে না পশ্চিমে, উত্তরে না দক্ষিণে? চারদিকে এতটাই মুগ্ধতা আর আকর্ষণের ছড়াছড়ি। দুপুর পর্যন্ত রিশপে কাটিয়ে আবার ফিরতে হবে আপনাকে। লাভায় ফিরে এসে লাঞ্চ করতে হবে। সেই ১০০ টাকার প্যাকেজ।

সারাদিন এদিক-ওদিক ঘুরে ঘুরে কাটিয়ে, এটা সেটা খেয়ে আরো ২৫ টাকা খরচ হতে পারে আপনার। সাথে কফির জন্যও ২০ টাকা। পরের দিন আবার ফেরার পালা। সেই একই ভাবে, তবে এবার ৮৫ টাকা লাগতে পারে আপনার, লাভা থেকে কালিম্পং যেতে। তবে কালিম্পং এসে লাভা থেকে ফেরার সেই অতিরিক্ত জিপ ভাড়ার টাকা পুষিয়ে নিতে পারেন আপনি। কালিম্পং থেকে ১৪৫ টাকার জিপে না ফিরে, পাবলিক বাসে ১২০ টাকা ভাড়া দিয়ে যেতে পারেন।

শিলিগুড়ি ফিরে ৫০ টাকার চাওমিন, ২৫ টাকার রসগোল্লা, ১৫ টাকার লিমকা খেয়ে আর ২০ টাকার আইসক্রিম নিয়ে উঠে পড়তে পারেন ফুলবাড়ির অটোতে। ভাড়া ১৮ টাকা। তারপর ফুলবাড়ি সীমান্তে অভাবনীয় আতিথেয়তা। ৭০ টাকায় পঞ্চগড় আর ৬০০ টাকায় নাবিল পরিবহনে ঢাকা। এই হলো আমার দার্জিলিং জেলার অন্যতম আকর্ষণীয় দুই জায়গা রিশপ-লাভা ভ্রমণের খরচের খতিয়ান।

সাকুল্যে খরচ হলো ৫০ ডলারের মধ্যেই।

About Author

শেয়ার করুন

Facebook Comments

আরো সংবাদ পড়ুন